ছুটবে মেট্রো

ছুটবে মেট্রো

আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা৷ তার পরেই দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত ছুটবে মেট্রো৷ ফেব্রুয়ারি মাসের শেষেই দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত মেট্রো চালু হয়ে যাবে বলে জানালেন মেট্রো রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজার মনোজ জোশী৷ অন্যদিকে, দ্রুত গতিতে এগোচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর সুরঙ্গের কাজও৷ চলতি বছরের শেষেই শিয়ালদহ থেকে চালু হতে পারে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো৷ জোশী জানান, ‘‘সমস্ত কিছু পরিকল্পনা মাফিক চললে জোকা-বিবাদি বাগ মেট্রো করিডরও আগামী ২ বছরের মধ্যে শুরু হয়ে যাবে৷ ২০২২ সালের মধ্যে নিউ গড়িয়া থেকে রুবি পর্যন্ত মেট্রো পরিষেবারও চালু হতে পারে৷’’ আবার বিমানবন্দরে তৈরি হতে চলেছে নোয়াপাড়া-বারাসত মেট্রোর সবচেয়ে বড় স্টেশন৷ এই স্টেশনের সঙ্গে বিমানবন্দরের প্রবেশ পথকে জোড়ার পরিকল্পনাও রয়েছে৷ যার জন্য তৈরি হবে পৃথক সাবওয়ে৷
মেট্রোর জন্য মোবাইল ভিত্তিক টিকিটিং ব্যবস্থা চালু করার কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে বলে জানা জোশী৷ তাঁর কথায়, এর ফলে টিকিট কাউন্টারে ভিড় অনেকটাই কমবে৷ এমনকী মেট্রো যাত্রীদের স্মার্টকার্ডেরও প্রয়োজন হবে না৷ মনোজ জোশী আরও জানান, বিভিন্ন স্টেশনে যাত্রীদের নানাবিধ সুযোগ সুবিধা পৌঁছে দেওয়াই এবং পরিকাঠামোগত উন্নয়ন তাঁদের প্রধান লক্ষ্য৷
এদিকে শিয়ালদহ থেকে ইস্ট-ওয়েস্টের পশ্চিমমুখী সুড়ঙ্গ নির্মাণের কাজ ফের শুরু হয়ে গিয়েছে৷ গত বছর অক্টোবরের মধ্যেই এক মুখী টানেল তৈরির কাজ শেষ হয়েছিল৷ এবার বউবাজারের দিকে পাঠানো হল টানেল বোরিং মেশিন৷ আগামী চার-পাঁচ মাসের মধ্যেই এই কাজ শেষ হবে বলে আশাবাদী মেট্রো কর্তৃপক্ষ৷ খনন কাজ পরিচালিত হচ্ছে শিয়ালদহ থেকেই৷ এর আগে বৌবাজার এলাকায় হোঁচট খেয়েছিল সুরঙ্গ তৈরির কাজ৷ ধ্বসে পড়েছিল বহু বাড়ি৷ এই বিপত্তি এড়াতে সাবধানে এগোচ্ছে কে এম আর সি এল৷ জোশী আরও জানান, ‘‘বর্তমানে বাংলায় ২৯৮টি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চলছে৷ প্রায় ৩ লক্ষ ৯০ হাজার মানুষ এই ট্রেনে সফর করেছেন৷ কোভিড মোকাবিলা করতে ট্রেনে যথাযথ স্যানেটাইজেশনের কাজ চলছে৷ প্যারা মেডিক্যাল স্টাফদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে এবং যাত্রীদের থার্মল স্ক্যানিংয়ের পরই ট্রেনে তোলা হচ্ছে৷’’

News Desk

News Desk

প্রাসঙ্গিক বিষয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *