প্রধানমন্ত্রী ৭ই ফেব্রুয়ারী হলদিয়া থেকে তেল, গ্যাস ও সড়ক সংক্রান্ত একগুচ্ছ প্রকল্প জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করবেন

প্রধানমন্ত্রী ৭ই ফেব্রুয়ারী হলদিয়া থেকে তেল, গ্যাস ও সড়ক সংক্রান্ত একগুচ্ছ প্রকল্প জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করবেন

 প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ৭ই ফেব্রুয়ারী হলদিয়ায় তেল, গ্যাস ও সড়ক সংক্রান্ত একগুচ্ছ পরিকাঠামোগত প্রকল্প জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করবেন। পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল শ্রী জগদীপ ধনখড়, মুখ্যমন্ত্রী শ্রীমতী মমতা ব্যানার্জী সহ বিশিষ্ট অতিথিদের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার কথা আছে।    শ্রী মোদী, ৩৪৭ কিলোমিটার দীর্ঘ দোভি – দুর্গাপুর প্রাকৃতিক গ্যাস পাইপলাইন জাতিকে উৎসর্গ করবেন। প্রধানমন্ত্রী উর্জা গঙ্গা প্রকল্পের আওতায় গেইল ২৪৩৩ কোটি টাকা ব্যয়ে দোভি – দুর্গাপুর পাইপলাইনের কাজটি করেছে। এই প্রকল্পের সময় ১৫ লক্ষ কর্মদিবস সৃষ্টি হয়েছিল। এরফলে ঝাড়খন্ডে সিন্দ্রিতে সার কারখানার পুনরুজ্জীবন সম্ভব। দুর্গাপুরে ম্যাট্রিক্স সার কারখানা, বিভিন্ন শিল্প সংস্থা, বাণিজ্যিক সংস্থা ও গাড়ি নির্মাণ শিল্পে এর মাধ্যমে গ্যাস সরবরাহ করা যাবে। পশ্চিমবঙ্গে পুরুলিয়া, আসানসোল ও দুর্গাপুরে এই গ্যাস সরবরাহ সম্ভব হবে।     প্রধানমন্ত্রী এই অনুষ্ঠানে ভারত পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের রান্নার গ্যাস আমদানী করার টার্মিনালটিও উদ্বোধন করবেন। পূর্ব ভারতে রান্নার গ্যাসের চাহিদা ক্রমশ বাড়ছে। প্রধানমন্ত্রী, প্রত্য়েক বাড়িতে পরিবেশ বান্ধব রান্নার গ্যাস সরবরাহ করার আহ্বান জানিয়েছেন। হলদিয়ায় ভারত পেট্রোলিয়ামের এই টার্মিনাল তৈরি করতে ব্যয় হয়েছে ১১০০ কোটি টাকা। প্রধামন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনা শুরু হওয়ার পর সারা দেশে রান্নার গ্যাসের চাহিদা বেড়েছে। পশ্চিমবঙ্গে ২০১৪ সালে যেখানে ৪১.৪ শতাংশ বাড়িতে রান্নার গ্যাসের সংযোগ ছিল, সেখানে আজকে পাওয়া হিসেব অনুসারে এই পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৯৯.৫ শতাংশ।   প্রধানমন্ত্রী, হলদিয়ায় ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কে রাণীচকে রেল লাইনের ওপর একটি চার লেনের উড়ালপুল উদ্বোধন করবেন। হলদিয়া বন্দরের মাধ্যমে পূর্ব ও উত্তর – পূর্ব ভারতের সঙ্গে স্থলবেস্টিত নেপাল ও ভুটানেও পণ্য পরিবহণ করা হয়। এই উড়ালপুল নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১৯০ কোটি টাকা।  ঐ একই অনুষ্ঠানে শ্রী মোদী ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশনের হলদিয়া তৈল পরিশোধনাগারে ক্যাটালিটিক ডিওয়াকসিং ইউনিটের শিলান্যাস করবেন। এর জন্য ব্যয় হবে ১০১৯ কোটি টাকা। এই সংস্থা থেকে ২৭০ এমএমটিপিএ ক্ষমতা সম্পন্ন পণ্য পরিবহণ করা যাবে। আত্মনির্ভর ভারত অভিযানে এই প্রকল্প সহায়ক হবে। প্রধানমন্ত্রী, পূর্ব ভারতের সূর্যোদয়ের যে স্বপ্ন দেখেন, সেই স্বপ্ন পূরণে এই প্রকল্পগুলি সহায়ক হবে। এই প্রকল্পগুলি পশ্চিমবঙ্গের যুব সম্প্রদায়ের জন্য কর্মসংস্থানে সাহায্য করবে।   

News Desk

News Desk

প্রাসঙ্গিক বিষয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *