১৭টি রাজ্য এক দেশ এক রেশন কার্ড ব্যবস্থা চালু করেছে

১৭টি রাজ্য সফলভাবে “এক দেশ এক রেশন কার্ড ব্যবস্থা” চালু করছে। এই তালিকায় নতুন সংযোজন হলো উত্তরাখণ্ড।  এক দেশ এক রেশন কার্ড ব্যবস্থার ক্ষেত্রে সংস্কারের কাজ সম্পন্ন করা রাজ্যগুলিকে ‘গড় রাজ্য অভ্যন্তরীণ  পণ্য উৎপাদন'(জিএসডিপি)এর ০.২৫ শতাংশ অতিরিক্ত  ঋণ গ্রহণের যোগ্য হিসেবে ধরা হবে। একইভাবে এই রাজ্যগুলি অর্থ মন্ত্রকের ব্যয় বরাদ্দ দপ্তরের থেকে ৩৭,৬০০ কোটি টাকা অতিরিক্ত ঋণ গ্রহণের অনুমতি পাবে। এক দেশ এক রেশন কার্ড ব্যবস্থা হলো নাগরিক কেন্দ্রীয় সংস্কারসাধন ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটি বাস্তবায়নের ফলে জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইন এবং অন্যান্য কল্যাণমুখী প্রকল্পের আওতায় সুবিধাভোগীদের বিশেষত পরিযায়ী শ্রমিক এবং তাদের পরিবার দেশের যে কোনো প্রান্তে ন্যায্য মূল্যের দোকান থেকে প্রাপ্য রেশন সংগ্রহ করতে পারবেন।  এই সংস্কারসাধনের মাধ্যমে পরিযায়ী শ্রমিক বিশেষত যাঁরা শ্রমজীবী, দিনমজুর, রাস্তায় বসবাসকারী মানুষ, সংগঠিত ও অসংগঠিত ক্ষেত্রে অস্থায়ী কর্মী এবং যাঁরা ঘন ঘন বাসস্থানের ঠিকানা বদল করে থাকেন তাদের খাদ্য সুরক্ষার নিশ্চয়তা প্রদান করবে। প্রযুক্তি পরিচালিত এই ব্যবস্থাপনায় পরিযায়ী সুবিধাভোগীরা দেশের যে কোনো প্রান্তে ন্যায্য মূল্যের দোকান থেকে  ইলেক্ট্রিক পয়েন্ট অফ সেল (ই-পিওএস) ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে তাঁদের প্রাপ্য খাদ্য শস্য সংগ্রহণ করতে পারবেন। এই সংস্কারের ফলে সংশ্লিষ্ট  রাজ্যগুলি সুবিধাভোগীদের আরও ভালোভাবে সহায়তা প্রদান করতে পারছে। কোভিড-১৯ মহামারির জেরে একাধিক সমস্যা মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সাহায্যের পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় সরকার গত বছর ১৭ মে রাজ্যগুলির ঋণ প্রদানের  উদ্যোগ নেয়। এ কারণে ব্যয়বরাদ্দ দপ্তর রাজ্য গুলির জন্য  মূলত – (১)এক দেশ এক রেশন কার্ড ব্যবস্থা চালু, (২) সহজে ব্যবসা ক্ষেত্রে সংস্কার, (৩) স্থানীয় নগর প্রশাসন ক্ষেত্রে সংস্কার, (৪) বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে সংস্কার এই চারটি কাজ সম্পন্ন করার লক্ষ্য  স্থির করে দেয়। ১৭টি রাজ্য এই চারটি ক্ষেত্রেই সংস্কারসাধন সম্পন্ন করেছে। এই রাজ্যগুলি হলো অন্ধ্রপ্রদেশ, গোয়া, গুজরাট, হরিয়ানা, হিমাচলপ্রদেশ, কর্ণাটক, কেরালা, মধ্যপ্রদেশ, মণিপুর, ওড়িশা, পাঞ্জাব, রাজস্থান, তামিলনাড়ু, তেলেঙ্গানা, উত্তরাখণ্ড এবং উত্তরপ্রদেশ। 

News Desk

News Desk

প্রাসঙ্গিক বিষয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *