স্পিকার নির্বাচনের দিন বিরোধীদের এক হাতে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী

স্পিকার নির্বাচনের দিন বিরোধীদের এক হাতে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী

বিধানসভা ভোটে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে বাংলার মসনদে এসে ফের একবার দেশে নির্বাচনী সংস্কার নিয়ে আওয়াজ তোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্য বিধানসভার স্পিকার নির্বাচনের মঞ্চ থেকে এই দাবিতে সরব হয়েছেন তিনি। রাজ্যের সদ্যসমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ সরব মুখ্যমন্ত্রী।

উল্লেখ্য শনিবার তৃতীয়বারের জন্য রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ নির্বাচিত হলেন বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি বিধায়কের অনুপস্থিতিতেই তিনি স্পিকার নির্বাচিত হন। স্পিকার নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর বলতে উঠে বিজেপিকে একহাত নেন মমতা। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের সহায়তায় কোথাও কোথাও রিগিং হয়েছে। অবিলম্বে নির্বাচনী আইনের সংস্কার হওয়া উচিত। চিরকূট দিয়ে বদলি করে দেওয়া হয়েছে প্রশাসনিক আধিকারিকদের। নির্বাচন কমিশনের সাহায্য না পেলে বিজেপি রাজ্যে ৩০ টা আসন পেত না বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী।
গত রবিবার বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা হয়েছে। আর ২১-এর মহারণে একাধিকবার নির্বাচন কমিশনকে তোপ দেগেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় থেকে তৃণমূল। কমিশন বিজেপির অঙ্গুলিহেলনে কাজ করছে এমন কোথাও শোনা গিয়েছে। এবার বিধানসভায় দাঁড়িয়ে তৃতীয়বারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফের নির্বাচন কমিশনকে নিশানা করলেন। উল্লেখ্য, নির্বাচন পর্বে প্রশাসনিক স্তরে রদবদল করেছে নির্বাচন কমিশন। সরিয়ে দেওয়া একাধিক জেলার পুলিশ আধিকারিক ।
এদিন সেই প্রসঙ্গ টেনে এনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন। স্পিকারকে স্বাগত ভাষণে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘মা, মাটি, মানুষের সরকারও হ্যাট্রিক করল, আপনিও করলেন।’ তারপরই বিধানসভায় নিজের ভাষণে কেন্দ্র ও বিজেপিকে তুলোধনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর সাফ কথা, ‘বাংলার মানুষের রায় মানতে না পেরেই রাজ্যে অশান্তির চেষ্টা করে চলেছে কেন্দ্র। তাই নতুন সরকারের ২৪ ঘন্টা অতিক্রমের আগেই রাজ্যে কেন্দ্রীয় দল পাঠানো হয়েছে।’ ভোট পরবর্তী দাঙ্গায় অশান্ত বাংলার একাধিক এলাকাল ঝরেছে প্রাণ। যা আদতে বিজেপির উস্কানিতে হচ্ছে বলে দাবি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। হিংসা ছড়ালে প্রশাসনকে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইএর-র নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

News Desk

News Desk

প্রাসঙ্গিক বিষয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *